1. admin@banglardorpon.com.bd : belal :
  2. firoz@banglarsangbad.com.bd : Firoz Kobir : Firoz Kobir
  3. rubin@wfh.thewolf.club : lavonneportillo :
  4. lima@banglardorpon.com.bd : Khadizatul kobra Lima : Khadizatul kobra Lima
  5. mijuahmed2016@gmail.com : Miju Ahmed : Miju Ahmed
  6. lon@wfh.thewolf.club : roboshaughnessy :
  7. test23519785@wintds.org : test23519785 :
  8. test36806100@wintds.org : test36806100 :
  9. test37402178@wintds.org : test37402178 :
  10. test38214340@wintds.org : test38214340 :
  11. test40493353@wintds.org : test40493353 :
  12. test9417170@wintds.org : test9417170 :
  13. rona@wfh.thewolf.club : waldo43b400667 :
অফুরন্ত এক আলোর উৎস মহান আল্লাহ
বাংলার দর্পন পরিবারে আপনাকে স্বাগতম...!!!

এখন সময় বিকাল ৫:৫০ আজ বুধবার, ৭ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৪ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি




অফুরন্ত এক আলোর উৎস মহান আল্লাহ

রিপোর্টার
  • সংবাদ সময় : শুক্রবার, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ২১ বার দেখা হয়েছে
অফুরন্ত এক আলোর উৎস মহান আল্লাহ

মহান আল্লাহ অফুরন্ত আলোর উৎস। তাঁর আলোকচ্ছটা থেকে আলোকিত হয়েছে আকাশ ও পৃথিবী। আলোকিত হয়েছে মানুষ ও গোটা সৃষ্টিজগৎ। মহান আল্লাহ বলেন, ‘আল্লাহ নভোমণ্ডল ও ভূমণ্ডলের জ্যোতি। তাঁর জ্যোতির উপমা যেন একটি দীপাধার। যাতে আছে একটি প্রদীপ। যা আছে একটি কাঁচপাত্রের মধ্যে। পাত্রটি একটি উজ্জ্বল নক্ষত্রের মতো। যা প্রজ্বালিত করা হয় বরকতময় জয়তুনগাছের তেল দ্বারা। যা পূর্বমুখীও নয়, পশ্চিমমুখীও নয়। আগুন স্পর্শ না করলেও ওই তেল যেন স্বচ্ছ আলো। আলোর ওপর আলো। আল্লাহ যাকে ইচ্ছা নিজ আলোতে পরিচালিত করেন। আল্লাহ মানুষের জন্য উপমা বর্ণনা করেন। আসলে আল্লাহ সব বিষয়ে জ্ঞাত।’ (সুরা নূর, আয়াত : ৩৫)

অন্ধকার রাতে আলো দেখে যেমন সবাই পথ চলে, নভোমণ্ডল ও ভূমণ্ডলে তেমনি আল্লাহকে কেন্দ্র করে সব কিছু চলে। তিনিই সব কিছুর ধারক ও পরিচালক। তিনিই সৃষ্টবস্তু পরিচালনা করেন ও তাদের সুপথ দেখান। আল্লাহ নিজেই সত্তাগতভাবে নূর এবং তাঁর প্রেরিত হিদায়াত ও কিতাব পরিপূর্ণ জ্যোতির্ময়। তাতে মিথ্যার লেশমাত্র নেই। যদি আল্লাহ প্রেরিত সত্যের আলো না থাকত, তাহলে সব কিছু মিথ্যার অন্ধকারে ডুবে যেত। তাঁর আলোর উপমা মুমিনের হৃদয়ে প্রক্ষিপ্ত ঈমান ও কোরআনের মতো, যা তাঁর দিকে মানুষকে পরিচালিত করে। সেটি মুমিনের হৃদয়ে রক্ষিত একটি দীপাধারতুল্য। যাতে আছে একটি প্রদীপ। একটি কাচপাত্রের মধ্যে যে প্রদীপ জ্বালানো হয় জয়তুন বৃক্ষের স্বচ্ছ তেল দ্বারা। যার আলো পূর্বমুখী নয়, পশ্চিমমুখীও নয়। প্রদীপটি এমনভাবে স্থাপিত যে মধ্যাহ্ন সূর্যের মতো সর্বাবস্থায় সোজাভাবে তাতে আলোকসম্পাত হয়। জ্যোতির ওপর জ্যোতি। অর্থাৎ তেল ও তেল পাত্রটাও যেমন উজ্জ্বল, তার আলো তেমনি উজ্জ্বল। মুমিনের হৃদয়টাও অনুরূপ। তার বিশ্বাসও নির্ভেজাল তাওহিদের আলোকে সমুজ্জ্বল। তার কর্মও কোরআনের অনুসরণে প্রোজ্জ্বল। এমন উদাহরণ দিয়ে আল্লাহ মানুষকে বুঝ দিয়ে থাকেন। আর আল্লাহ মানুষের ভেতর-বাহির সব কিছুর খবর রাখেন।

আল্লাহ তাআলা আসমানি কিতাব বিশেষত কোরআনকে নূর তথা পরিপূর্ণ আলো বলে উল্লেখ করেছেন। ইরশাদ হয়েছে, ‘অতএব তোমরা আল্লাহ ও তাঁর রাসুল এবং যে আলো আমি (আল্লাহ) নাজিল করেছি, তার ওপর বিশ্বাস স্থাপন করো। আসলে আল্লাহ তোমাদের কৃতকর্ম সম্পর্কে সম্যক অবহিত।’ (সুরা তাগাবুন, আয়াত : ৮)

অন্যত্র আল্লাহ বলেন, ‘হে আহলে কিতাব, তোমাদের কাছে আমার রাসুল এসেছেন। তিনি বহু বিষয় তোমাদের সামনে বিবৃত করেন, যেসব বিষয় তোমরা তোমাদের কিতাব থেকে গোপন করো। আরো বহু বিষয় তিনি এড়িয়ে যান। আসলে তোমাদের কাছে আল্লাহর পক্ষ থেকে এসেছে একটি জ্যোতি ও আলোকময় কিতাব।’ (সুরা মায়েদা, আয়াত : ১৫)

পবিত্র কোরআনে এসেছে, ‘যার বক্ষ আল্লাহ ইসলামের জন্য উন্মুক্ত করে দিয়েছেন, অতঃপর সে তার রবের দেওয়া জ্যোতির মধ্যে আছে, (সে কি অন্যের মতো হতে পারে?)। অতএব দুর্ভোগ ওই লোকদের জন্য, যাদের অন্তর আল্লাহর স্মরণবিমুখ (কঠোর)। তারা সুস্পষ্ট ভ্রষ্টতার মধ্যে আছে।’ (সুরা জুমার, আয়াত : ২২)

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ধরনের আরো খবর



প্রকৌশল সহযোগিতায়: মোঃ বেলাল হোসেন