1. ashik@banglardorpon.com.bd : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  2. admin@banglardorpon.com.bd : belal :
  3. firoz@banglarsangbad.com.bd : Firoz Kobir : Firoz Kobir
  4. rubin@wfh.thewolf.club : lavonneportillo :
  5. lima@banglardorpon.com.bd : Khadizatul kobra Lima : Khadizatul kobra Lima
  6. mijan@banglardorpon.com.bd : Mijanur Rahman : Mijanur Rahman
  7. lon@wfh.thewolf.club : roboshaughnessy :
  8. rona@wfh.thewolf.club : waldo43b400667 :
ঢাবির ভর্তির আবেদন শুরু ৮ মার্চ
বাংলার দর্পন পরিবারে আপনাকে স্বাগতম...!!!

এখন সময় রাত ৪:০৮ আজ শনিবার, ২১শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৬ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ২১শে রজব, ১৪৪২ হিজরি




ঢাবির ভর্তির আবেদন শুরু ৮ মার্চ

রিপোর্টার
  • সংবাদ সময় : শুক্রবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২১
  • ৯ বার দেখা হয়েছে
ঢাবির ভর্তির আবেদন শুরু ৮ মার্চ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে অনলাইনের মাধ্যমে প্রার্থীদের ভর্তির আবেদন প্রক্রিয়া শুরু হবে আগামী ৮ মার্চ। সেদিন বিকাল চারটা থেকে শুরু হয়ে ৩১ মার্চ রাত ১১ টা ৫৯ মিনিট পর্যন্ত আবেদন প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে।

বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবন মিলনায়তনে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে ভর্তি বিষয়ক সাধারণ ভর্তি কমিটির সভায় এসব সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, অনলাইনে আবেদন শেষে সরকারি ব্যাংগুলোর যেকোনো শাখায় ১ এপ্রিল রাত ১১ টা ৫৯ মিনিটের মধ্যে টাকা জমা দিতে হবে। এবার প্রতি ইউনিটের জন্য আবেদন ফি নির্ধারণ করা হয়েছে ৬৫০ টাকা। এছাড়া করোনার কারণে বিদ্যমান পরিস্থিতিতে ভর্তি পরীক্ষায় আবেদনের ন্যূনতম শর্ত বাড়ানো হয়েছে।

অনলাইনে আবেদন শেষে সরকারি ব্যাংগুলোর যেকোনো শাখায় ১ এপ্রিল রাত ১১ টা ৫৯ মিনিটের মধ্যে টাকা জমা দিতে হবে। এবার প্রতি ইউনিটের জন্য আবেদন ফি নির্ধারণ করা হয়েছে ৬৫০ টাকা। এছাড়া করোনার কারণে বিদ্যমান পরিস্থিতিতে ভর্তি পরীক্ষায় আবেদনের ন্যূনতম শর্ত বাড়ানো হয়েছে।

সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ, উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, অনলাইন ভর্তি কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মো. মোস্তাফিজুর রহমান, বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যান, বিভিন্ন ইনস্টিটিউটের পরিচালক, রেজিস্ট্রার এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ক-ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ২১ মে, খ-ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ২২ মে, গ-ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ২৭ মে, ঘ-ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ২৮ মে এবং চ-ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা (সাধারণ জ্ঞান) ৫ জুন অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিটি ইউনিটের পরীক্ষা ঢাকাসহ আটটি বিভাগীয় শহরে সকাল ১১ টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে।

ভর্তিচ্ছু আবেদনকারীদের ন্যূনতম যোগ্যতা হিসেবে ‘ক’ ইউনিটের জন্য মাধ্যমিক ও সমমান এবং উচ্চ মাধ্যমিক ও সমমান পরীক্ষায় (৪র্থ বিষয়সহ) প্রাপ্ত জিপিএ-দ্বয়ের যোগফল ন্যূনতম ৮.৫ (আলাদাভাবে জিপিএ ৩.৫), ‘খ’ ইউনিটের জন্য জিপিএ-দ্বয়ের যোগফল ন্যূনতম ৮.০ (আলাদাভাবে ৩.০), ‘গ’ ইউনিটের জন্য জিপিএ-দ্বয়ের যোগফল ন্যূনতম ৮.০ ( আলাদাভাবে ৩.৫), ‘ঘ’ ইউনিটের জন্য মানবিক শাখার ক্ষেত্রে জিপিএ-দ্বয়ের যোগফল ন্যূনতম ৮.০ (আলাদাভাবে ৩.০) ও বিজ্ঞান শাখার ক্ষেত্রে জিপিএ-দ্বয়ের যোগফল ন্যূনতম ৮.৫ (আলাদাভাবে ৩.৫) এবং ‘চ’ ইউনিটের জন্য জিপিএ-দ্বয়ের যোগফল ন্যূনতম ৭.০ (আলাদাভাবে জিপিএ ৩.০) থাকতে হবে।

সভায় ‘ক’, ‘খ’, ‘গ’ ও ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় ৬০ নম্বরের এমসিকিউ এবং ৪০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। শুধুমাত্র ‘চ’ ইউনিটের পরীক্ষায় ৪০ নম্বরের এমসিকিউ এবং ৬০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। ‘ক’, ‘খ’, ‘গ’ ও ‘ঘ’ ইউনিটের এমসিকিউ পরীক্ষার জন্য ৪৫ মিনিট এবং লিখিত পরীক্ষার জন্য ৪৫ মিনিট সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। ‘চ’ ইউনিটের এমসিকিউ পরীক্ষার জন্য ৩০ মিনিট এবং লিখিত পরীক্ষার জন্য ৪৫ মিনিট সময় নির্ধারণ করা হয়েছে।

ভর্তি সংক্রান্ত বিস্তারিত নির্দেশনা ও তথ্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট এবং পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে শিগগিরই জানিয়ে দেওয়া হবে।

আবেদনে পূর্বের শর্ত বহালের দাবি ভর্তিচ্ছুদের:

অন্যদিকে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তির আবেদনে পূর্বের শর্ত বহালের দাবি জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা। বৃহস্পতিবার সকালে এই দাবিতে বেশ কয়েকজন ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী উপাচার্য অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান বরাবর স্মারকলিপি দিতে আসেন। তবে উপাচার্যের সঙ্গে তাদের দেখা করতে দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ করেন তারা।

শিক্ষার্থীরা জানান, করোনার কারণে অটো প্রমোশনের কারণে এসএসসিতে ভালো ফল না থাকায় এইসএসসিতেও ভালো ফল হয়নি। অথচ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য তাদের প্রস্তুতি ভালো ছিলো। কিন্তু কিছুদিন পূর্বে ভর্তি পরীক্ষায় আবেদনের পয়েন্ট বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়। যদি আবেদনকারীকে পূর্ব নির্ধারিত জিপিএ পয়েন্ট বাদ দিয়ে নতুন জিপিএ পয়েন্ট তথা বিজ্ঞানের জন্য ৮.৫০, ব্যবসায় শিক্ষার জন্য ৮.০০ এবং মানবিকের জন্য ৭.৫০ করা হয়, তাহলে তাদের জীবন হুমকির মুখে পড়বে। এসময় তারা পূর্বের শর্ত বহালের দাবি জানান।

এ বিষয়ে উপাচার্য আখতারুজ্জামান বলেন, পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের ফল পর্যালোনা করে বিজ্ঞানসম্মত উপায়ে সবকিছু বিবেচনা করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিনরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এটি পরিবর্তনের সুযোগ নেই।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ধরনের আরো খবর



প্রকৌশল সহযোগিতায়: মোঃ বেলাল হোসেন