1. ashik@banglardorpon.com.bd : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  2. admin@banglardorpon.com.bd : belal :
  3. firoz@banglarsangbad.com.bd : Firoz Kobir : Firoz Kobir
  4. rubin@wfh.thewolf.club : lavonneportillo :
  5. lima@banglardorpon.com.bd : Khadizatul kobra Lima : Khadizatul kobra Lima
  6. mijan@banglardorpon.com.bd : Mijanur Rahman : Mijanur Rahman
  7. lon@wfh.thewolf.club : roboshaughnessy :
  8. rona@wfh.thewolf.club : waldo43b400667 :
পেঁপের বিচির উপকারিতা - বাংলার দর্পন
বাংলার দর্পন পরিবারে আপনাকে স্বাগতম...!!!

এখন সময় দুপুর ২:০৩ আজ মঙ্গলবার, ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২০শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ২রা রবিউল আউয়াল, ১৪৪২ হিজরি




পেঁপের বিচির উপকারিতা

রিপোর্টার
  • সংবাদ সময় : শনিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০২০
  • ৪ বার দেখা হয়েছে

আমরা অনেকেই পেঁপে পছন্দ করি, কারণ শুধু  স্বাদের জন্যই নয়; পেঁপে অত্যন্ত পুষ্টিগুণসমৃদ্ধ একটি খাবার। তবে জানেন কি, কেবল পেঁপেই নয়, এর বিচিতেও রয়েছে অনেক পুষ্টিগুণ? পেঁপের বিচি লিভার, কিডনি ও ডাইজেসটিভ ট্র্যাক্টের বিষাক্ত পদার্থ দূর করতে উপকারী।

এটি রক্তের সুগারের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে, হৃদরোগের সঙ্গে লড়াই করে এবং ক্ষত নিরাময়ে সাহায্য করে। পেঁপের বিচির কিছু গুণের কথা জানিয়েছে স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইট ডেমিক।

প্রদাহ প্রতিরোধ করে: পেঁপের বিচি আর্থ্রাইটিস, জয়েন্টের রোগ, ফোলা ভাব, ব্যথা ও লালচে ভাব কমাতে কাজ করে। এই ছোট বিচিগুলো যেকোন এন্টি-ইনফ্লেমেটরি (প্রদাহবিরোধী) ওষুধের চেয়ে বেশি শক্তিশালী। এর কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই তবে আপনি পেতে পারেন হাজারো উপকারিতা।

এন্টি ব্যাক্টেরিয়াল ও সংক্রামক রোগ নিরোধক: এক টেবিল চামচ পেঁপের বিচি আপনার শরীরকে সাহায্য করবে ভাইরাল ইনফেকশন্স, স্টেফের মতো জীবাণু, সেলমনেলা এবং ই-কলি এবং টাইফয়েড, ডেঙ্গুর বিরুদ্ধে লড়াই করতে। ভাইরাল ইনফেকশন্স এবং টাইফয়েডের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য পেঁপের বিচির চেয়ে ভালো কোন ওষুধ কিংবা অন্য কোন কিছু আপনি খুঁজেও পাবেন না।

পরাভূক/পরজীবী জীবাণু ও ক্রিমি দূর করে : পেঁপের বিচি প্রোটিওলিটিক এনজায়েম দ্বারা সমৃদ্ধ যেমন- পেপেইন। এটি প্রাথমিক পর্যায়ের পরাভূক বা পরজীবী জীবাণু দূর করে, হজম না হওয়া খাদ্যের প্রোটিনের বর্জ্য ভেঙে ফেলে এবং পরাভূক/পরজীবী ও তাদের অস্তিত্বকেও দূর করে দেয়।

উচ্চ রক্তচাপ কমায়: পেঁপের পাতা ও বিচির মধ্যে কারপেইন রয়েছে। এই উপাদানটি হার্টের স্বাস্থ্যকে ভালো রাখে।

কিডনির বিষাক্ত পদার্থ দূর করে: পেঁপের বিচির মধ্যে রয়েছে শক্তিশালী অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল ও প্রদাহরোধী উপাদান। এটি কিডনির বিষাক্ত পদার্থ দূর করতে কাজ করে।

লিভারের সুরক্ষায়: লিভারের বিষাক্ত পদার্থ দূর করতেও পেঁপের বিচি উপকারী। এটি ফ্যাটি লিভার ডিজিজের চিকিৎসায় উপকারী।

হজম শক্তি বাড়ায়: আমরা যে বিচি ফেলে দেই সেই বিচিতে রয়েছে প্রলিউটিক এনজায়েম যেমন-গিøসিল, এনডোপেপটিডেজ, প্যাপেইন, চাইমোপাপেইন এবং ক্যারিকেইনের মতো উপাদান। যা শরীর থেকে বর্জ্য অপসারণ করে এবং খাবার হজমে সাহায্য করে।

অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট: ক্যান্সার হচ্ছে বর্তমান সময়ের প্লেগ রোগ এবং এখন সময় এসেছে এটির সেলগুলোকে প্রাথমিক পর্যায়ে ধ্বংস করে দিয়ে সকলে সুস্থ্য-সুন্দর জীবন যাপন-করার। শরীর থেকে এর উপসর্গ দূর করার জন্য এবং সুস্থ থাকতে হলে আপনাকে পেঁপের বিচির সাহায্য নিতে হবে। সকলের জন্য সুখবর হচ্ছে- পেঁপের বিচি ক্যান্সার ও টিউমারের সেল ধ্বংস করে, একইরকম কাজ করে লিউকোমিয়ার ক্ষেত্রেও।

রক্তসঞ্চালন নিয়ন্ত্রণ করে: পেঁপে কম্পাউন্ড-কারপেইন সমৃদ্ধ, যা হৃদ সংকোচন সংক্রান্ত ও উচ্চ রক্তচাপ দূর করে।

কীভাবে খাবেন?

পেঁপে থেকে সরাসরি বিচি বের করে নিন। একে কাঁচা খান। এর মধ্যে সামান্য মধু মিশিয়ে নিন। এ ছাড়া ফলের সঙ্গে মিশিয়েও খেতে পারেন। প্রথমে একটু একটু করে পেঁপের বিচি খাওয়া শুরু করেন। ধীরে ধীরে পরিমাণ বাড়ান।

সতর্কতা:

তবে পেঁপের বিচি স্পার্মের কার্যকারিতা কমিয়ে দেয়।

এর মধ্যে অ্যান্টিপ্যারাসিস্টিক প্রভাব রয়েছে, তাই এটি শিশুদের না দেওয়াই ভালো হবে।

এ ছাড়া গর্ভাবস্থায় ও শিশুকে স্তনদানের সময় এ খাবারটি এড়িয়ে যান।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ধরনের আরো খবর



প্রকৌশল সহযোগিতায়: মোঃ বেলাল হোসেন