1. admin@banglardorpon.com.bd : belal :
  2. firoz@banglarsangbad.com.bd : Firoz Kobir : Firoz Kobir
  3. rubin@wfh.thewolf.club : lavonneportillo :
  4. lima@banglardorpon.com.bd : Khadizatul kobra Lima : Khadizatul kobra Lima
  5. lon@wfh.thewolf.club : roboshaughnessy :
  6. test23519785@wintds.org : test23519785 :
  7. test36806100@wintds.org : test36806100 :
  8. test37402178@wintds.org : test37402178 :
  9. test38214340@wintds.org : test38214340 :
  10. test40493353@wintds.org : test40493353 :
  11. test9417170@wintds.org : test9417170 :
  12. rona@wfh.thewolf.club : waldo43b400667 :
পারিশ্রমিক পাওয়া নিয়ে সংশ ক্রিকেটারদের
বাংলার দর্পন পরিবারে আপনাকে স্বাগতম...!!!

এখন সময় রাত ২:০২ আজ শনিবার, ১৬ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৩১শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ২০শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি




পারিশ্রমিক পাওয়া নিয়ে সংশ ক্রিকেটারদের

রিপোর্টার
  • সংবাদ সময় : শনিবার, ১১ জুলাই, ২০২০
  • ২৩৯ বার দেখা হয়েছে
পারিশ্রমিক পাওয়া নিয়ে সংশ ক্রিকেটারদের

অনলাইন ডেস্ক:
করোনা সংক্রমণ ও বর্ষা মৌসুমের কারণে ডিপিএল এখন মাঠে গড়ানোয় অনিশ্চিত। লিগের শুরুতে ক্রিকেটারদের অনুশীলন -ফাইল ফটো  দেশের ক্রিকেটারদের সংগঠন ক্রিকেটার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (কোয়াব) ঢাকার প্রিমিয়ার লিগের ক্লাবগুলোর কাছে পারিশ্রমিকের ৫০ শতাংশ দাবি করেছে। গত মঙ্গলবার কোয়াবের এক অনলাইন সভা শেষে বিসিবির মাধ্যমে প্রিমিয়ার লিগের ক্লাবগুলোক এই দাবি জানানো হয়েছে। কিন্তু প্রিমিয়ার ডিভিশন লিগের ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক পাওয়া নিয়ে সংশয় রয়ে গেছে। করোনাকালে ক্লাবগুলোর যেমন আর্থিক সংকট, অপরদিকে বর্ষা মৌসুমের কারণে লিগের খেলা মাঠে গড়ানো নিয়েও রয়েছে অনিশ্চয়তা।ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক পাওয়ার বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড ও অধীনস্থ ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিস (সিসিডিএম) আন্তরিক। আর সে কারণেই গত মঙ্গলবারই সিসিডিএম এর চেয়ারম্যান কাজী ইনাম আহমেদও আলোচনায় বসেছিলেন কোয়াবের সঙ্গে। বিসিবি ও সিসিডিএম বাস্তবিকই উপলদ্ধি করতে পেরেছেন যে, প্রিমিয়ার লিগ শুরু করতে না পারলে ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক পাওয়াও কঠিন হয়ে পড়বে। আর এই বিষয়টি নিয়ে বোর্ড পারিচালক ও সিসিডিএমের চেয়ারম্যান কাজী ইনাম আহমেদ বলেছিলেন, ‘মঙ্গলবার আমরা কোয়াব এবং বেশ কয়েকজন জাতীয় দলের ও প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটারের সঙ্গে বৈঠক করেছি। বৈঠকে আমরা প্রিমিয়ার লিগ কবে শুরু করা যায়, সেটি নিয়ে আলাপ করেছি। তবে এই মুহূর্তে কোনো তারিখ চূড়ান্ত না হলেও ক্লাবগুলোকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, প্রিমিয়ার লিগ দিয়েই খেলা শুরু হওয়ার বিষয়টি। সব ক্লাব ১৫ দিনের নোটিশে লিগ শুরুর প্রস্তুতি রাখবে।’ সিসিডিএম চেয়ারম্যানের কথায় ক্রিকেটারদের মাঝে একটা প্রশান্তি চলে এসেছিল যে, এবার তাহলে ক্রিকেটারদের একটা গতি হবে। করোনার কারণে এক রাউন্ড হয়ে প্রিমিয়ার লিগ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ক্রিকেটারদের অনেকেই চাহিদামাফিক পারিশ্রমিক না পেয়ে নিদারুণ অর্থকষ্টে রয়েছেন। লিগ শুরু হওয়ায় তারা নিশ্চয়ই পারিশ্রমিক পাবে, এবার বুঝি তাদের একটা গতি হবে। কেউ কেউ এমন ভাবলেও, আসলে কি তাই হবে? ক্লাবগুলো কি সত্যি সত্যি কোয়াবের আহ্বানে, বিসিবির মধ্যস্ততায় পারিশ্রমিকের ৫০ ভাগ দিয়ে দেবে? দিলে সেটা কবে দেবে? এমন অনেক প্রশ্নই ঘুরপাক খাচ্ছে সবার মনে। আসলেই কী ক্লাবগুলো কোনো পারিশ্রমিক দেবে ক্রিকেটারদের। দেয়ার এতটুকু সম্ভাবনাও নেই। ক্লাবগুলো বর্তমান অবস্থায় ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক দেবে না। সত্যিকার অর্থে দেয়ার মতো অবস্থাও নেই। বিষয়টি স্পর্শকাতর, তাই আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দিতে রাজি নয় কেউ।এ প্রসঙ্গে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু বলতে অনীহা সবার। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন ক্লাব কর্তা গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে প্রিমিয়ার লিগ নতুন করে শুরু না হলে, ক্লাবগুলোর পক্ষে ৫০ ভাগ পারিশ্রমিক দেওয়া সম্ভব না। এখন যে অর্থনৈতিক অবস্থা, তাতে পারিশ্রমিক দেয়ার মতো সচ্ছল অবস্থা নেই ক্লাবগুলোর- এমন দাবি ক্লাব কর্তাদের। গণমাধ্যমকে কয়েকজন ক্লাব কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ‘৫০ শতাংশ না হলেও দু-একটি ছাড়া বেশিরভাগ ক্লাবই ২০-৩০ শতাংশ অগ্রিম পেমেন্ট করেছে। দল বদলের আগে নতুন ক্রিকেটারদের সঙ্গে চুক্তির সময় এক-চতুর্থাংশ পারিশ্রমিক দেওয়া হয়েছে অনেক ক্রিকেটারকেই। আর শীর্ষ তারকাদের প্রায় সবাই গড়পড়তা ৪০-৫০ ভাগ অগ্রিম পেমেন্ট পেয়েছেন।’

যেহেতু এক ম্যাচ হয়ে লিগ করোনার কারণে বন্ধ হয়ে গেছে, তাই আর পেমেন্ট দেয়া হয়নি। এখন নতুন করে লিগ শুরু না হলে আসলে আর পেমেন্ট দেওয়া সম্ভব না- এমনটাই বোঝা গেছে ক্লাব কর্তাদের কথায়। তাদের শেষ কথা, ‘সবাই ক্রিকেটারদের অর্থ কষ্টের কথা বলছেন, ক্লাবগুলোর কথা ভাবছেন কজন? ক্লাবগুলোরতো আর কাড়ি কাড়ি টাকা নেই যে ক্রিকেটারদের ইচ্ছেমতো দিয়ে দেবে? ক্লাবের কাছে অর্থ থাকতে হবে তো?’

ক্লাব কর্তাদের কারও কারও মন্তব্য, ‘আসলে আমরা ডোনারদের কাছ থেকে অর্থ সংগ্রহ করে তারপর ক্রিকেটারদের দেই। এখন করোনায় চারদিকে অবস্থা খারাপ। কমবেশী সবার অর্থনৈতিক অবস্থা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। দিনমজুর থেকে শুরু করে বিভিন্ন কর্পোরেট হাউস, শিল্প ও ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের মালিক- করোনা সবাইকে নাড়িয়ে দিয়েছে। সবারই হাতের অবস্থা খারাপ। লিগ শুরুর খবর নেই, কবে শুরু হবে তার নিশ্চয়তা নেই- এখন কার কাছে টাকা চাইব? কে দেবে অর্থের জোগান? কাজেই কোয়াব যতই ৫০ ভাগ পারিশ্রমিক দাবি করুক, বর্তমান প্রেক্ষাপটে তা দেওয়া সম্ভব না। করোনা সংকট কমলে, অবস্থার উন্নতি ঘটুক, লিগ শুরু হোক, খেলা আবার মাঠে গড়াক- তখন এক-দুই রাউন্ড পরে নিশ্চয়ই অর্থের জোগান আসবে। কেবল তখনই ক্রিকেটারদের হাতে টাকা দেওয়া সম্ভব হবে, তার আগে নয়।’

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ধরনের আরো খবর



প্রকৌশল সহযোগিতায়: মোঃ বেলাল হোসেন