1. ashik@banglardorpon.com.bd : Ashikur Rahman : Ashikur Rahman
  2. admin@banglardorpon.com.bd : belal :
  3. firoz@banglarsangbad.com.bd : Firoz Kobir : Firoz Kobir
  4. rubin@wfh.thewolf.club : lavonneportillo :
  5. lima@banglardorpon.com.bd : Khadizatul kobra Lima : Khadizatul kobra Lima
  6. mijan@banglardorpon.com.bd : Mijanur Rahman : Mijanur Rahman
  7. lon@wfh.thewolf.club : roboshaughnessy :
  8. rona@wfh.thewolf.club : waldo43b400667 :
সদরঘাট লঞ্চডুবির ১২ ঘণ্টা পর এক যাত্রীকে জীবিত উদ্ধার!
বাংলার দর্পন পরিবারে আপনাকে স্বাগতম...!!!

এখন সময় বিকাল ৩:৩৮ আজ বৃহস্পতিবার, ৬ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২২শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা রবিউল আউয়াল, ১৪৪২ হিজরি




সদরঘাট লঞ্চডুবির ১২ ঘণ্টা পর এক যাত্রীকে জীবিত উদ্ধার!

রিপোর্টার
  • সংবাদ সময় : সোমবার, ২৯ জুন, ২০২০
  • ৭১ বার দেখা হয়েছে
সদরঘাট লঞ্চডুবির ১২ ঘণ্টা পর এক যাত্রীকে জীবিত উদ্ধার!

অনলাইন ডেস্ক: সদরঘাটে দুই যাত্রীবাহী লঞ্চের সংঘর্ষে ডুবে যাওয়া লঞ্চের এক যাত্রীকে ১২ ঘণ্টা পর জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। রাত ১০টার দিকে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা তাকে উদ্ধার করেন।

ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এয়ার লিফটিং পদ্ধতি ব্যবহার ডুবে যাওয়া জাহাজটি উদ্ধার করার সময় ঐ যাত্রীকে মাঝনদী থেকে জীবিত উদ্ধার করেন। ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল জানায় উদ্ধার করার সময় তাকে জীবিত পাওয়া গেছে। তিনি এখনো সুস্থ আছেন। তার হাত পা নড়ছে এবং চোখ খোলা পাওয়া গেছে।

ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা প্রথমে চারটি এয়ার লিফটিং ব্যবহার করে জাহাজটিকে অনেকটুকু উপরে তোলার পর একটি এয়ার লিফটিং ছিড়ে গেলে অতিরিক্তি আরো ২টি এয়ার লিফটিং ব্যবহার করে মোট ৬টি এয়ার লিফটিং দিয়ে জাহাজটিকে অনেকাংশে তোলার পর জাহাজের ভেতরে ঢুকে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল। সেখানে তেল মবিল গায়ে মাখা অবস্থায় এক ব্যক্তিকে উদ্ধার করা হয়েছে। পরে দেখা যায়, তিনি জীবিত, চোখ নাড়ছেন।

ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা বলেন, তাকে যেহেতু জীবিত উদ্ধার করা গেছে এখন তাকে হাসপাতালে নিয়ে সুস্থ করে তোলার ওপরই অগ্রাধিকার দেয়া হচ্ছে। এ বিষয়ে বিস্তারিত পরে জানা যাবে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

One response to “সদরঘাট লঞ্চডুবির ১২ ঘণ্টা পর এক যাত্রীকে জীবিত উদ্ধার!”

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ধরনের আরো খবর



প্রকৌশল সহযোগিতায়: মোঃ বেলাল হোসেন